ট্রেলার মুক্তিতে রাজকীয় ভাব!

ইতিহাসের চরিত্র করতে আমার ভীষণ ভালো লাগে। ওই সময় তো আমি জন্মাইনি, তবে শুটিংয়ে মনে হয়েছিল ওই টাইমে পৌঁছে গেছি।’ বললেন জয়া আহসান। ‘এক যে ছিল রাজা’ ছবির ট্রেলার মুক্তির অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য গত রোববার কলকাতা গেছেন তিনি। আজ মঙ্গলবার রাতেই তাঁর ঢাকায় ফেরার কথা। গতকাল সোমবার কলকাতায় রাজকীয়ভাবে ছবিটির ট্রেলার মুক্তি দেওয়া হলো। এই ছবিতে জয়া আহসানের ২৫ থেকে ৮০ বছরের জীবনের বিভিন্ন রূপ ফুটে উঠবে।

‘এই মামলার প্রথম সাক্ষী হিসেবে আমি কাঠগড়ায় ডেকে নিতে চাই এক মৃতদেহকে। মৃতদেহটির নাম রাজা মহেন্দ্র কুমার চৌধুরী৷’ আদালতে আইনজীবীর চিৎকার৷ বিচারকের অনুমতি নিয়ে কাঠগড়ায় এক মৃতদেহকে ডাকতে চান! সবার কাছে মৃত হলেও বাস্তবে তিনি জীবন্ত৷ হাঁটাচলা করছেন। নিজে থেকেই উঠে এসে কাঠগড়ায় দাঁড়ালেন৷ একজন জীবন্ত ব্যক্তিকে কেন মৃত বলা হচ্ছে? এদিকে ‘অবজেকশন’ বলে দাঁড়ালেন আরেকজন মহিলা আইনজীবী৷ তিনি বললেন, ‘অবজেকশন মাই লর্ড! এই লোকটি পাঞ্জাব প্রদেশের মাল সিং নামের এক প্রতারক। কোনোক্রমেই বিক্রমপুরের মেজ রাজকুমার নন।’

‘এক যে ছিল রাজা’ ছবিতে যীশু সেনগুপ্ত‘এক যে ছিল রাজা’ ছবিতে যীশু সেনগুপ্ততাহলে এই মৃতদেহের আসল পরিচয় কী? তা নিয়ে ‘এক যে ছিল রাজা’ ছবির গল্প। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বই ‘প্রিন্সলি ইম্পস্টার: দ্য স্ট্রেঞ্জ অ্যান্ড ইউনিভার্সাল হিস্ট্রি অব কুমার অব ভাওয়াল’ আর মুরাদ ফৈজির বই ‘এ প্রিন্স: পয়জন অ্যান্ড টু ফিউনারাল’ অবলম্বনে সৃজিত মুখোপাধ্যায় তৈরি করেছেন তাঁর নতুন ছবি ‘এক যে ছিল রাজা’। তাঁর মতে, ‘ছবিটা আসলে ইতিহাসের দলিল। কী হয়েছিল ভাওয়াল সন্ন্যাসী মামলায়, সেটাই এই ছবির মুখ্য বিষয়।’

সৃজিত মুখোপাধ্যায় আরও বলেছেন, ‘পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের লেখাতে জাতীয়তাবাদের স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে, তবে আমি এর সঙ্গে যোগ করেছি নারীবাদ। আর সে কারণেই চন্দ্রাবতীর (বিম্বাবতী) আইনজীবীকে আমি নারী রেখেছি। সঙ্গে রয়েছে পেছনের গল্প। আর আদালতে আইনজীবীদের চরিত্রগুলোতে মনের মাধুরী মিশিয়েছি। এদিকে ইতিহাস থেকে আমি অল্প হলেও বিচ্যুত হয়েছি। চরিত্রগুলোর নাম একটু করে বদলে দিয়েছি। সে কারণেই রাজা রমেন্দ্র নারায়ণ হয়েছেন মহেন্দ্র কুমার। তবে তা ছাড়া সাক্ষ্যপ্রমাণ, স্থান—কিছুই পরিবর্তন করিনি।’

রাজা মহেন্দ্র কুমার চৌধুরীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন যীশু সেনগুপ্ত। অনুষ্ঠানে তিনি বললেন, ‘আমার অভিনয়জীবনে যতগুলো ছবিতে কাজ করেছি, সেগুলোর চেয়ে কঠিন ছিল এই ছবিতে অভিনয়। মেকআপ নিয়ে কোনো কথা হবে না। সোমনাথের জন্য ছবিতে আমার লুকটা তৈরি হয়েছে।’

অনুষ্ঠানে ছবি নিয়ে কথা বলেন জয়া আহসানঅনুষ্ঠানে ছবি নিয়ে কথা বলেন জয়া আহসানকঙ্কণা সেন শর্মা তাঁর মা অপর্ণা সেনকে বারবার অনুরোধ করেছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বই ‘প্রিন্সলি ইম্পস্টার: দ্য স্ট্রেঞ্জ অ্যান্ড ইউনিভার্সাল হিস্ট্রি অব কুমার অব ভাওয়াল’ অবলম্বনে একটি ছবি তৈরির জন্য। গতকালের অনুষ্ঠানে অপর্ণা সেন হেসে বললেন, ‘পার্থ আমার কলেজের বন্ধু। ওর বইটা খুঁজেছি, কিন্তু পাইনি। যদি পেয়ে যেতাম, আর চিত্রনাট্য লিখতে পারলে ছবিটা হয়তো আমিই বানাতাম।’ ‘এক যে ছিল রাজা’ ছবিতে মহিলা আইনজীবীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অপর্ণা সেন।

‘এক যে ছিল রাজা’ ছবিতে যীশুর স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন রাজনন্দিনী পাল আর বোনের চরিত্রে জয়া আহসান। রাজা মহেন্দ্র কুমার চৌধুরীর আইনজীবীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন অঞ্জন দত্ত। আরও অভিনয় করেছেন অনির্বাণ ভট্টাচার্য, রুদ্রনীল সেনগুপ্ত, শ্রীনন্দা শঙ্কর, বরুণ চন্দ। সংগীত পরিচালনা করেছেন ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত। পূজা উপলক্ষে আগামী ১২ অক্টোবর মুক্তি পাবে ‘এক যে ছিল রাজা’।

সূত্রঃ প্রথমআলো