মাদারীপুরে গৃহবধূর খুনে তিনজনের ফাঁসি

মাদারীপুরে গৃহবধূ হত্যা মামলায় স্বামীসহ তিনজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. শরিফউদ্দিন আহম্মেদ এ রায় দেন।

দণ্ডাদেশ পাওয়া আসামিরা হলেন শরীয়তপুরের জেলার চন্দ্রপুর গ্রামের খালেক সরদারের ছেলে ও নিহত গৃহবধূর স্বামী বাবু সরদার (২০) ও তাঁর দুই সহযোগী মাদারীপুর শহরের রকেটবিড়ি এলাকার উজ্জ্বল খান (২২) ও একই এলাকার নাঈম চৌকিদার (২১)।

আদালত ও মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, ২০১৩ সালের শহরের রকেটবিড়ি এলাকার শাহআলম খায়ের মেয়ে শাহাজাদী বেগমের (১৮) সঙ্গে শরীয়তপুরের পালং থানাধীন খালেক সরদারের ছেলে বাবু সরদারের বিয়ে হয়। ২৮ জুলাই রকেটবিড়ির বাসা থেকে বাবু শাহাজাদীকে নিয়ে বের হন। পরে শাহাজাদীর পরিবারের লোকজন অনেক চেষ্টা করেও শাহাজাদী ও তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সন্ধান পাননি। এরপর ৯ আগস্ট সদরের পাঁচখোলা এলাকায় আড়িয়াল খাঁ নদ থেকে শাহাজাদীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় শাহাজাদীর মা নাছিমা বেগম বাদী হয়ে শাহাজাদীর স্বামী বাবু সরদার, শ্বশুর খালেক সরদার ও শাশুড়ি মেহেরজানের বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

মামলায় বাবু সরদার, উজ্জ্বল খান, নাঈম চৌকিদারের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ। বিচারিক প্রক্রিয়া ও যুক্তিতর্ক শেষে আদালত অভিযুক্ত ৩ জনের ফাঁসির আদেশ দেন। পাশাপাশি মামলার আসামি খালেক সরদার ও মেহেরজান বেগমকে অব্যাহতি দেন।

মাদারীপুরের জজ কোর্টের পিপি মো. এমরান লতিফ বলেন, ‘মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ২০১৪ সালের ১৭ ডিসেম্বর মামলার অভিযোগপত্র দেওয়ার পর দীর্ঘ দিন শুনানি শেষে নিহত গৃহবধূর স্বামীসহ তিনজনকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে বাবু ও নাঈম গ্রেপ্তার থাকলেও উজ্জ্বল পলাতক।

সূত্রঃ প্রথম আলো