হাথুরুই ছেঁটে ফেলেছেন ম্যাথুসকে?

২০১৭ সাল থেকে ব্যাটিং গড় ৫৯। তার পরও বাদ পড়তে হলো অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে জায়গা হয়নি এশিয়া কাপের পর অধিনায়কত্ব হারানো এই অলরাউন্ডারের। ম্যাথুস এর আগে অভিযোগ করেছিলেন, ষড়যন্ত্র হচ্ছে তাঁর বিরুদ্ধে

কাল যে ছিল রাজা, আজ সে ফকির! অনেকটা এমন অভিজ্ঞতাই হচ্ছে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের। শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটের প্রতিভা-শূন্যতার মধ্যে ম্যাথুস ছিলেন সবচেয়ে বড় ভরসাগুলোর একটি। সেই ম্যাথুসকে এখন অচল লাগছে লঙ্কান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের। একে-ওকে বাতিল করে দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের ক্রিকেটে বেশ আলোচিত নাম ছিলেন হাথুরু। শ্রীলঙ্কাতেও চলছে তাঁর এই দাওয়াই। তারই সর্বশেষ শিকার ম্যাথুস। অধিনায়কের পদ থেকেই শুধু নয়, এবার দল থেকেই বাদ পড়তে হলো এই অলরাউন্ডারকে। শ্রীলঙ্কার প্রধান নির্বাচক গ্রায়েম ল্যাব্রুইকে সামনে রেখে পেছনে হাথুরু যে বড় ভূমিকা রেখেছেন, তা অনেকটাই পরিষ্কার।

এশিয়া কাপের ভরাডুবির পর ম্যাথুসকে প্রথমে অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তখন ম্যাথুস শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের কাছে দীর্ঘ চিঠি লিখে অভিযোগ করেন, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন। এই ষড়যন্ত্র কে করেছে, তা অবশ্য উল্লেখ করেননি। তবে ভাসা ভাসা ইঙ্গিত ছিল কোচের দিকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের জন্য দল থেকেই ম্যাথুসকে বাদ দেওয়ার পর এই প্রশ্ন আরও জোরালো হয়েছে।

ভাস-মুরালির পর সাঙ্গা-জয়াদের বিদায়ের শূন্যতায় শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট এখনো খাবি খাচ্ছে। সেই অবস্থায় টেস্ট ও ওয়ানডে দুই জায়গায় ৪৩ ও ৪২-এর ওপরে গড়ে রান করা, পাশাপাশি দারুণ পেসে বল করতে পারা ম্যাথুস তো রীতিমতো সম্পদ। তাঁর ফর্মও বাজে নয়। বরং ২০১৭ সালের পর থেকে তাঁর ব্যাটিং গড় ষাটের কাছাকাছি। তিন ম্যাচ আগেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অপরাজিত ৯৭ করেছেন। সেই ম্যাথুসকে বাদ দেওয়ার যুক্তি কী? শ্রীলঙ্কান সমর্থকদের একটা অংশ তো বটেই, মিডিয়াতেও এই প্রশ্ন উঠছে।

এর ব্যাখ্যা দিয়েছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। তাঁর বক্তব্য, ফর্ম নয়, ফিটনেসের প্রেক্ষিতে বাদ পড়েছেন ম্যাথুস। ৩১ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডারের ফিটনেস বাজে বলেই তাঁর কারণে রান আউটের শিকার হচ্ছেন সতীর্থরা। হাথুরুর ব্যাখ্যায় যেটি দলের ডায়নামিকসে প্রভাব ফেলছে। এমনকি এও বলা হচ্ছে, বাজে ফিটনেসের কারণে ম্যাথুস এখন দলের জন্য বোঝা হয়ে গেছেন।

হাথুরু বলেছেন, ‘এই মুহূর্তে রানিং বিটুইন দ্য উইকেট আমাদের কাছে বড় দুশ্চিন্তার নাম। পুরো দলের জন্যই, শুধু ম্যাথুস বলে নয়। আমরা ওকে আরও ফিট অবস্থায় চাই। আমি জানি ২০১৭ থেকে ওর গড় ৫৯, তিন ম্যাচ আগেও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৯৭ করেছে। কিন্তু উদ্বেগের কারণগুলোও যথেষ্ট। যদি রেকর্ডের দিকেই তাকান, দেখবেন ও ৬৪টি রান আউটের সঙ্গে জড়িয়ে আছে। এর মধ্যে ৪৯ বার ওর কারণে সতীর্থ ব্যাটসম্যান আউট হয়েছে। এটা তো একটা বিশ্ব রেকর্ড। কিছু কিছু বিষয় নিয়ে আমরা ভাবছি। অবশ্যই আমি চাই ও শ্রীলঙ্কা দলকে আরও অনেক কিছু দিক। কিন্তু ওকে ফিরে আসতে হবে যথাসম্ভব ঝরঝরে, যথাসম্ভব পরিষ্কার ভাবনা নিয়ে।’

সূত্রঃ প্রথম আলো